রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৫ ১৪২৬   ০৪ শা'বান ১৪৪১

১৬

প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে চাঁপাইয়ের বাজারে ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০২০  

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশেও এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। দেশে প্রথম করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত একজনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর।

এদিকে করোনার প্রকোপ বাড়ায় সারাদেশে প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে বাজারে ভিড় বাড়ছে ক্রেতাদের। চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাজারেও গতকাল ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তাদের আশঙ্কা, যদি দোকানপাটও বন্ধ ঘোষণা করা হয়। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন থাকলে কোনো সমস্যা হবে না।

উল্লেখ্য, জেলাতে এ পর্যন্ত ৩৭১ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সাবধানতার অংশ হিসেবে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তাই কারো কারো অভিমত, দোকানপাট বন্ধ হলে বিপদে পড়তে হতে পারে। এজন্য বাড়তি সতর্কতা হিসেবে প্রয়োজনীয় পণ্য কিনে রাখা। আবার কেউ কেউ বলছেন, এ সুযোগে ব্যবসায়ীরা যদি দাম বাড়িয়ে দেই? তাই আগাম কিনে রাখা

জেলা শহরের পুরাতন বাজারে কথা হয় একজন ক্রেতার সঙ্গে। তিনি পেশায় শিক্ষক। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই শিক্ষক বলেন, করোনা ভাইরাসের কথা চিন্তা করে আমি বাজারে এসেছি। এক মাসের জন্য বাজার করে নিলাম। তিনি জানান, যদি দাম বেড়ে যায়- এ কথা ভেবেই অগ্রিম বাজার করলাম। তাছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও বন্ধ। এর ফলে আমাকে বাড়ি থেকে নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া না বেরোলেও চলবে।

এদিকে সেখানকার ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, গত কয়েক দিন থেকে প্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে। যারা এখান থেকে এক সপ্তাহের জন্য বাজার করতেন, তাদের মধ্যে কেউ কেউ মাসব্যাপী কেউবা দুই মাসের জন্যও বাজার করে নিয়ে যাচ্ছেন।

ক্রেতা বৃদ্ধি পাওয়ায় পণ্যের দাম বাড়ছে কিনা এর উত্তরে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন- করোনা ভাইরাসের কারণে কোনো পণ্যের দাম বাড়েনি। বৃদ্ধি বলতে শুধু চালের দামটাই আজ (বৃহস্পতিবার) বেড়েছে। প্রতি কেজিতে ৫ টাকা বেড়েছে চালের দাম। তবে ভোজ্য তেলের দাম কমেছে। আর অন্যান্য পণ্যের দাম স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান তিনি।

আরেক মুদি বিক্রেতা জানান, কয়েক দিন থেকে তাদের দোকানে বেশি পরিমাণ বিক্রি হচ্ছে ডেটল ও হ্যান্ডওয়াশ। এ-জাতীয় সাবানও বেশ কিনছেন ক্রেতারা। পাশাপাশি অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্যও কিনে নিয়ে যাচ্ছেন ক্রেতারা।

এদিকে করোনা ভাইরাসকে উপলক্ষ করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য মজুদকারী এবং মূল্যবৃদ্ধিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করে দিয়ে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেছেন, জেলায় প্রতিটি পণ্যের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। তাই কেউ এক সঙ্গে বেশি করে কোনো পণ্য কিনে বাজারে সংকট সৃষ্টি করা যাবে না। গতকাল বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

 

স/মা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর