বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৫ ১৪২৬   ১৪ শা'বান ১৪৪১

৫৫১

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য টিয়া পাখি থানায়!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০১৯  

ফাইল ছবি।

ফাইল ছবি।

এক মাদক পাচারকারীকে ধরতে বাসায় অভিযান চালাতে গিয়েছিল পুলিশ। হঠাৎ বাসায় থাকা টিয়া পাখিটি চিৎকার করে বলে ওঠে, ‘মা, পুলিশ এসেছে।’ আর এই ‘অপরাধে’ পাখিটিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়েছে পুলিশ!

এই ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাজিলে। ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে জানা গেছে, কথিত দুজন কোকেন পাচারকারীকে ধরতে একটি একতলা বাসায় অভিযান চালিয়েছিল পুলিশ। বাসায় পুলিশ সদস্যরা ঢোকামাত্রই সেখানে থাকা একটি টিয়া পাখি ‘মা, পুলিশ এসেছে’ বলে বারবার চিৎকার করতে থাকে। এতে পুলিশের সন্দেহ হয় যে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পেরে জেনে আগে থেকেই পাখিটিকে প্রশিক্ষণ দিয়ে রেখেছিল অভিযুক্ত ব্যক্তিরা। আর এ কারণেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাখিটিকে আটক করে পুলিশ।

অভিযানে অংশ নেওয়া এক পুলিশ কর্মকর্তা গার্ডিয়ানকে বলেছেন, ‘পাখিটিকে নিশ্চয়ই আগে থেকে প্রশিক্ষণ দিয়ে রাখা হয়েছিল। যখনই আমরা বাসায় ঢুকেছি, তখনই সেটি চিৎকার করতে শুরু করে দেয়।’

পাখিটির ‘উদ্দেশ্য’ অবশ্য সফল হয়নি। মাদক পাচারকারী দুই ব্যক্তিকে ঠিকই আটক করেছে পুলিশ। কিন্তু যে উদ্দেশ্যে পাখিটিকে থানায় নিয়েছিল পুলিশ, তা সফল হয়নি। জিজ্ঞাসাবাদে হাজার চেষ্টা করেও পাখিটির মুখ থেকে আর একটি শব্দও বের করা যায়নি। আটক ব্যক্তিদের আইনজীবী সালমা ব্যারসের প্রশ্ন, থানায় যে পাখিটি একটি শব্দও উচ্চারণ করেনি, সেটি কীভাবে চিৎকার করে আসামিকে সতর্ক করতে পারে?

তবে পাখিটিকে কারাগারে আটক থাকতে হয়নি। ব্রাজিলের স্থানীয় চ্যানেলগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, টিয়া পাখিটিকে স্থানীয় একটি চিড়িয়াখানায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মাদক পাচারকারীদের সহায়তার অভিযোগে টিয়া পাখিকে অভিযুক্ত করার ঘটনা অবশ্য এটাই প্রথম নয়। ২০১০ সালে কলম্বিয়াতে লরেঞ্জো নামের একটি টিয়া পাখি পুলিশকে আসতে দেখে তার মালিককে ‘পালাও, পালাও’ বলে সতর্ক করে দিয়েছিল। পরে ওই সন্দেহভাজন ব্যক্তির কাছ থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করেছিল পুলিশ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর